বনেলি ঈগল | Bonellis Eagle | Hieraaetus fasciatus

1943

ছবি: ইন্টারনেট।

ঈগলের বাংলা নাম: ‘বনেলি ঈগল’| ইংরেজি নাম: ‘বনেলিস ঈগল, (Bonelli’s Eagle)’। বৈজ্ঞানিক নাম: Hieraaetus fasciatus |

প্রাকৃতিক আবাসস্থল পাহাড়ি অঞ্চলের শুষ্ক খোলামেলা জায়গা। বৈশ্বিক বিস্তৃতি বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, দক্ষিণ চীন, ইরান, ওমান ও তুর্কমেনিস্তান। এ ছাড়াও ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলে দেখা মেলে। দেশে ভরা শীতে পরিযায়ী হয়ে আসে। যত্রতত্র দেখা যাওয়ার নজির নেই। কদাচিৎ দেখা মেলে সুন্দরবন অঞ্চলে। শিকারি পাখি হলেও মাছ শিকারে আগ্রহ নেই। স্বভাবে হিংস্র। একাকী কিংবা জোড়ায় বিচরণ করে। বিশ্বব্যাপী এরা ভালো অবস্থানে নেই, স্থিতিশীল রয়েছে।

পুরুষ পাখির গড় দৈর্ঘ্য ৬৫-৭২ সেন্টিমিটার। প্রসারিত ডানা ১৫০-১৬০ সেন্টিমিটার। গড় ওজন ১৬০০-২৫০০ গ্রাম। স্ত্রী পাখি পুরুষের তুলনায় খানিকটা বড়। দেখতে অভিন্ন। মাথা ও ঘাড় লালচে বাদামির সঙ্গে সামান্য সাদার মিশ্রণ। পিঠ গাঢ় বাদামি, সাদারেখা যুক্ত। ডানার প্রান্ত পালক কালচে বাদামি। লেজ ধূসরাভ। দেহতল সাদার ওপর কালচে খাড়া দাগ। ঊরু এবং পা সাদা-বাদামি পালকাবৃত। যুবাদের রঙ ভিন্ন। ঠোঁট শিং কালো, তীক্ষ, বড়শির মতো বাঁকানো। চোখ হলুদ। ঠোঁটের গোড়া এবং মুখের কিনার হলদে। পায়ের পাতা হলদে, নখ কালো।

এদের প্রধান খাবার ছোট পাখি, স্তন্যপায়ী প্রাণী ও সরীসৃপ। প্রজনন মৌসুম জানুিয়ারি থেকে জুলাই। কোথাও কোথাও ফেব্রুয়ারি থেকে মার্চ। বাসা বাঁধে চিকন ডালপালা দিয়ে পাথুরে পাহাড়ের ভাঁজে। ডিম পাড়ে ১-২টি। ডিম ফুটতে সময় লাগে ৩৭-৪০ দিন।

লেখক: আলম শাইন।কথাসাহিত্যিক, কলামলেখক, বন্যপ্রাণীবিশারদ ও পরিবেশবিদ।
সূত্র: বাংলাদেশ প্রতিদিন, 24/09/2017